২০২৪ সালের ফিতরা কত টাকা | সাদাকাতুল ফিতর এর সঠিক পরিমাণ 2024

২০২৪ সালের ফিতরা কত টাকা | সাদাকাতুল ফিতর এর সঠিক পরিমাণ 2024

বন্ধুরা, ফিতরা একটি আরবি শব্দ। যা ইসলামে সাদাকাতুল ফিতর বা ফিতরের সদকা নামে পরিচিত। নারী-পুরুষ, স্বাধীন-পরাধীন, শিশু-বৃদ্ধ, ছোট-বড় সকল মুসলিমের জন্য ফিতরা প্রদান করা ওয়াজিব। জেনে নিন ২০২৪ সালের ফিতরা যত টাকা হবে। এখানে রয়েছে ফিতরা যত টাকা 2024 এর উত্তর।

ফিতরা কত টাকা ২০২৪ | যাকাতুল ফিতর এর সঠিক পরিমাণ 2024

কারা ফিতরা পাওয়ার যোগ্য? 

গরীব, দুঃস্থ, অসহায়, অভাবগ্রস্থ ব্যক্তিকে ফিতরা প্রদান করা যাবে। আপনার বাড়িতে বা প্রতিষ্ঠানে অল্প বেতনে যারা কর্মরত রয়েছেন, তাদেরকেও ফিতরা প্রদান করা যাবে। তবে উক্ত খাদ্য-দ্রব্য বা অর্থ তাহার বেতন, ভাতা হিসেবে উল্লেখ করা যাবে না। আলাদা ভাবে ফিতরা দিতে হবে, কারণ ফিতরা হলো সকল গরিব মানুষদের হক। 

খাদ্য দ্রব্য দিয়ে ফিতরা দেওয়া 

চাল, আটা, খেজুর, কিসমিস, পনির ও যব ইত্যাদি পণ্যগুলোর যে কোনো একটি ফিতরা হিসেবে দেওয়া যাবে।

আমাদের প্রিয় নবী হযরত মোহাম্মদ (সাঃ) এর সময় খাদ্য-দ্রব্য দিয়ে ফিতরা প্রদান করা হতো। তাই সবচেয়ে উত্তম হয় এভাবেই ফিতরা প্রদান করা। মুহাম্মদ সাঃ এর যুগে মুদ্রা হিসেবে দিরহাম প্রচলিত ছিলো। দিরহামের দ্বারা কেনা কাটা, দান খয়রাত করা হতো। তবু সাহাবী খুদরী রাঃ হতে বর্ণিত হাদিস থেকে জানা যায় মুহাম্মদ সাঃ খাদ্য বস্তু দিয়ে ফিতরা প্রদান করতেন। 


এজন্য মুসলমান পন্ডিতদের বড় অংশ টাকা দিয়ে ফিতরা প্রদানের ব্যাপারে ভিন্নমত পোষন করেন। ইমাম আহমদ রহঃ বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের সুন্নতের বরখেলাফ হওয়ার কারণে আমার আশঙ্কা হচ্ছে যে, তা যথেষ্ট হবে না। তবে ইমাম বুখারী (রহ.), ইবনে আবী শায়বা (রহ.) ও বায়হাকি (রহ.) বলেন, টাকা দিয়ে ফিতরা দিলে আদায় হয়ে যাবে।

প্রশ্ন: ফিতরা কত টাকা ২০২৪?

উত্তর: ২০২৪ সাল এর ফিতরা যত টাকা: ইসলামিক ফাউন্ডেশন বাইতুল মাকারামের সভাকক্ষে প্রতিবছরই ফিতরা মূল্য সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আটা, খেজুর, কিসমিস, পনির ও যব ইত্যাদি পণ্যগুলোর যে কোনো একটি ফিতরা হিসেবে দেওয়া যাবে। 

উন্নতমানের আটা বা গম ফিতরা হিসেবে দিলে ১ কেজি ৬৫০ গ্রাম বা এর বাজার মূল্য টাকা দিতে হবে। 

যব দিলে ৩ কেজি ৩০০ গ্রাম বা এর বাজার মূল্য টাকা, কিসমিসের ক্ষেত্রে ৩ কেজি ৩০০ গ্রাম বা এর বাজার মূল্য, খেজুরের ক্ষেত্রে ৩ কেজি ৩০০ গ্রাম বা এর বাজার মূল্য টাকা এবং পনির ফিতরা হিসেবে দিলে ৩ কেজি ৩০০ গ্রাম বা এর বাজার মূল্য দিতে হবে। 

এসব পণ্যের স্থানীয় খুচরা বাজার মূল্যের তারতম্য রয়েছে। তাই স্থানীয় মূল্যে পরিশোধ করলেও ফিতরা আদায় হবে। ইসলামিক ফাউন্ডেশন এর খতিব জানান, নিসাব পরিমাণ মালের মালিক হলে মুসলমান নারী-পুরুষের ওপর ঈদের দিন সকালে সাদাকাতুল ফিতর আদায় করা ওয়াজিব হয়। ঈদের নামাজে যাওয়ার আগে ফিতরা আদায় করতে হয়।

নিজ নিজ সামর্থ্য অনুযায়ী যে কোনো একটি পণ্য বা এর বাজার মূল্য সাদাকাতুল ফিতর আদায় করা যাবে। তবে আপনারা মোহাম্মদ (সাঃ) এর সুন্নাহ মুতাবেক উক্ত খাদ্য দ্রব্য ফিতরা হিসেবে দিলে সব চেয়ে ভালো হয়।

ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে ২০২৩ এর ফিতরা এর খাদ্যদ্রব্য মূল্য প্রকাশিত হলে এখানে আপডেট জানিয়ে দেওয়া হবে ইনশাআল্লাহ।

"সা" পরিমাপ সম্পর্কে 

ফিতরা প্রদানের পরিমাপ সংক্রান্ত আলোচনায় "সা" বহুল আলোচিত শব্দ। "সা" হচ্ছে আরবদেশে ওজন বা পরিমাপে ব্যবহৃত পাত্র। বাংলাদেশে যেমন ধান পরিমাপের জন্য একসময় কাঠা ব্যবহৃত হত। একজন মাঝামাঝি শারীরিক গঠনের মানুষ অর্থাৎ অধিক লম্বা নয় এবং বেঁটেও নয়, এই রকম মানুষ তার দুই হাত একত্রে করলে যে অঞ্জলি গঠিত হয়, ঐরকম পূর্ণ চার অঞ্জলি সমান হচ্ছে এক সা।

Tags: ফিতরা কত টাকা ২০২৪, যাকাতুল ফিতর এর সঠিক পরিমাণ 2024, ফিতরা 2024, সাদাকাতুল ফিতর ২০২৪ বাংলাদেশ৷ ২০২৪ সালের ফিতরা যত টাকা।
একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)
নবীনতর পূর্বতন